সাম্রাজ্যবাদ ও সাম্রাজ্য বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা

 সাম্রাজ্যবাদ ও সাম্রাজ্য

প্রাচীন কালে পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন উপজাতিগোষ্ঠী বসবাস করত। কোনো কোনো ক্ষেত্রে উপজাতির সদস্যরা রক্তের সম্পর্কের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে কোনো বয়োজ্যেষ্ঠ জ্ঞাতির নেতৃত্ব মেনে নিয়ে নির্দিষ্ট ভূখণ্ডে রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা করেছিল। আবার কখনো কখনো কোনো বীর যোদ্ধা তার শক্তির দ্বারা কোনো অঞ্চলের বাসিন্দাদের ওপর আধিপত্য কায়েম করে রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তবে এভাবে উপজাতীয় জীবনে গড়ে ওঠা রাষ্ট্রের আয়তন ছিল ক্ষুদ্র।

এই ক্ষুদ্রায়তন রাষ্ট্রগুলি পরবর্তীকালে সাম্রাজ্যবাদী নীতি গ্রহণ করে বৃহৎ সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছিল। অর্থাৎ সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার পূর্বে সাম্রাজ্যবাদের আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল। প্রাচীনকালে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে যে অসংখ্য সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে সেগুলি প্রতিষ্ঠার অন্যতম পূর্বশর্ত ছিল সাম্রাজ্যবাদী নীতি। যেমন প্রাচীন ভারতে মৌর্য শাসকদের সাম্রাজ্যবাদী নীতির ফলেই বৃহৎ সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা সম্ভব হয়েছিল।

ভারতে হর্ষঙ্ক, শৈশুনাগ, নন্দ ও মৌর্য বংশের শাসকদের ধারাবাহিক সাম্রাজ্যবাদী নীতির ফলেই ষোড়শ মহাজনপদের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন ক্ষুদ্র জনপদগুলিকে ঐক্যবদ্ধ করে খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকে মগধ সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা সম্ভব হয়েছিল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, একটি সাম্রাজ্যের রাজনৈতিক কাঠামো সুনির্দিষ্ট রূপ লাভ করে প্রধানত দুটি পদ্ধতিতে—

  1. সামরিক শক্তির দ্বারা অন্য রাজ্যের ভূখণ্ড দখল করে সাম্রাজ্যের প্রসার ঘটানো ও নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা এবং 
  2. বার্ষিক কর আদায়, বশ্যতা আদায় প্রভৃতির মাধ্যমে অন্য রাজ্যের উপর পরোক্ষ নিয়ন্ত্রণ স্থাপন। এজন্য ইতিহাসবিদ ট্যাসিটাস বিদ্রুপ করে বলেছেন, “To plunder, to slaughter, to steal, these things they misname empire; and where they make a wilderness, they call it peace.”

সুদূর অতীতের সাম্রাজ্য

পৃথিবীতে সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার ইতিহাস বহু প্রাচীন। আক্কাদীয় সাম্রাজ্য: আজ থেকে প্রায় ৬০০০ বছর পূর্বে অর্থাৎ খ্রিস্টপূর্ব চতুর্বিংশ শতকে মহান সারাগনের নেতৃত্বে মেসোপটেমিয়ায় ইউফ্রেটিস-টাইগ্রিস নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চলকে কেন্দ্র করে বৃহৎ আক্কাদীয় সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল বলে জানা যায়। সম্ভবত এটিই পৃথিবীর প্রথম সাম্রাজ্য। ? অ্যাসিরীয় সাম্রাজ্য প্রাচীন অ্যাসিরীয় সাম্রাজ্য : খ্রিস্টপূর্ব ২০০০ অব্দে গড়ে উঠেছিল এবং তা প্রায় ১৪০০ বছর অস্তিত্বশীল ছিল। 3 মিশরীয় সাম্রাজ্য :

প্রাচীন মিশরে তৃতীয় থুটমোসের নেতৃত্বে খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চদশ শতকে বৃহৎ সাম্রাজ্য গড়ে উঠেছিল।

  1. মিডিয়ান সাম্রাজ্য : কিছুকাল পর গ্রিসের প্রতিবেশী পার্সিয়া অঞ্চলে প্রথম মিডিয়ান সাম্রাজ্য গড়ে উঠেছিল।
  2. আকিমেনীয় সাম্রাজ্য : পরবর্তীকালে গ্রিসে বিভিন্ন ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র নগর রাষ্ট্রের উৎপত্তি হলেও প্রতিবেশী পার্সিয়া অঞ্চলে আকিমেনীয় সাম্রাজ্য (৫৫০-৩৩০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ) প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। সুবিশাল এই সাম্রাজ্যে বিভিন্ন জাতির সহাবস্থান ঘটেছিল। মিশর, মেসোপটেমিয়া, থ্রেস,

সারাগনের ব্রোঞ্জমূর্তি

মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়ার বৃহদংশ এবং গ্রিসের অংশবিশেষ আকিমেনীয় সাম্রাজ্যের অধীনে চলে গিয়েছিল।

  1. পরবর্তীকালের সাম্রাজ্য : মগধ সাম্রাজ্য : খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতকের পরবর্তীকালে প্রাচীন ভারতে শক্তিশালী মহাজনপদ মগধ অন্যান্য জনপদগুলিকে দখল করে সাম্রাজ্যে পরিণত হয়েছিল।
  2. ম্যাসিডনীয় সাম্রাজ্য : এ যুগে প্রাচীন ইউরোপে দ্বিতীয় ফিলিপ ও তৃতীয় আলেকজান্ডারের নেতৃত্বে ম্যাসিডন প্রতিবেশী গ্রিক পলিস বা নগর রাষ্ট্র ও অন্যান্য প্রতিবেশী অঞ্চল দখল করে সুবিশাল সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছিল। অর্থাৎ খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতকের পরবর্তীকালে ভারত এবং ইউরোপে বৃহৎ সাম্রাজ্যের আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল। অর্থাৎ ইতিহাসবিদ ড. রমেশচন্দ্র মজুমদার ভারতের ক্ষেত্রে যে যুগকে ‘রাজকীয় ঐক্যের যুগ’ বা ‘The Age of Imperial Unity’ বলে অভিহিত করেছেন তা ইউরোপের ক্ষেত্রেও সমানভাবে প্রযোজ্য হতে পারে।
  3. রোমান সাম্রাজ্য : পরবর্তীকালে ম্যাসিডনীয় সাম্রাজ্যের ধ্বংসস্তূপের উপর ইউরোপে রোমান সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা হয়। রোমান সাম্রাজ্য ছিল পৃথিবীর
  4. ইতিহাসে এক দীর্ঘকালীন ও সর্ববৃহৎ সাম্রাজ্য। খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকে ইউরোপে যে সুবিশাল রোমান সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল তার পশ্চিম অংশের ৪৭৬ খ্রিস্টাব্দে পতন হলেও পূর্ব অংশ ১৪৫৩ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত অস্তিত্বশীল ছিল।
  5. হান সাম্রাজ্য : ২০৬ খ্রিস্টপূর্বাব্দে চিনে গড়ে ওঠা হান সাম্রাজ্যও ছিল এক সুবৃহৎ ও দীর্ঘকালীন সাম্রাজ্য। এই সাম্রাজ্য ৪০০ বছরের বেশি সময় অস্তিত্বশীল ছিল। 
  6. মৌর্য ও গুপ্ত সাম্রাজ্য : প্রাচীন ভারতে গড়ে ওঠা খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকের মৌর্য সাম্রাজ্য (৩২৪-১৮৭/১৮৫ খ্রিস্টপূর্ব) এবং গুপ্ত সাম্রাজ্য (খ্রিস্টীয় ২৭৫ থেকে ষষ্ঠ শতকের মাঝামাঝি) ছিল সুবৃহৎ সাম্রাজ্য।
  7. ইসলামীয় সাম্রাজ্য : খ্রিস্টীয় সপ্তম শতকে পবিত্র খলিফাগণ আরবকে কেন্দ্র করে এক সুবৃহৎ ইসলামীয় সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন।
  8. অটোমান সাম্রাজ্য : তুর্কি মুসলিমরা চতুর্দশ শতকে সুবিশাল অটোমান সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা (১২৯৯ খ্রি.) করেছিল যা ১৯২২ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত টিকেছিল। ৪ মোগল সাম্রাজ্য : ভারতে ১৫২৬ খ্রিস্টাব্দে মোগল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা হয় যা ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত টিকেছিল। আধুনিক যুগের সাম্রাজ্য আধুনিক যুগেও রাশিয়ার পিটার দ্য গ্রেট, ফ্রান্সের প্রথম ও তৃতীয় নেপোলিয়ন সুবিশাল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

Leave a Comment